আজ ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সৈয়দ আশরাফের স্বপ্ন বাস্তবায়নে আধুনিক পৌরসভা গড়তে চাই

আনোয়ার হোসেন নান্নু : কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের মাধ্যমে ‘দ্বিতীয়’ শ্রেণির পৌরসভায় উন্নীত করা হয়েছে। এটিকে প্রথম শ্রেণিতে উন্নীত করার লক্ষ্যে কাজ করছেন বর্তমান মেয়র আব্দুল কাইয়ুম খোকন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পৌরসভাকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে ২০১৫ সালে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নে মেয়র নির্বাচিত হওয়া আব্দুল কাইয়ুম খোকনের অবদান অনস্বীকার্য। এরই ধারাবাহিকতায় তিনি দ্বিতীয় মেয়াদে পুনর্নির্বাচিত হয়ে চলতি বছরের ১৭ মার্চ দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন।

মেয়র আব্দুল কাইয়ুম খোকন পৌরসভার উন্নয়নমূলক কাজের বিবরণ দিতে গিয়ে জানান, তার উন্নয়নমূলক কাজের মধ্যে রয়েছে আরসিসি ঢালাই সড়ক ৪ কিলোমিটার, কার্পেটিং ২৭ কিলোমিটার, এইচবিডি এক কিলোমিটার, ৭টি পাবলিক টয়লেট, ১১ কিলোমিটার ড্রেন, ২.৬০ কিলোমিটার ফুটপাত, ১০.১৭৫ কিলোমিটার সড়কবাতি, ৫টি ঘাটলা, ১টি কিচেন মার্কেট, একটি কবরস্থান ও একটি শ্মশান অন্যতম।

মেয়র বলেন, এ পৌরসভায় হিন্দু-মুসলিমদের মধ্যে গড়ে উঠেছে একটি অসাম্প্রদায়িক সুসম্পর্ক। ২০০৬ সালে ৫.৪৬ বর্গ কিলোমিটার জায়গা নিয়ে গঠিত হওয়া এ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড রয়েছে। কয়েকটি ছোট ও মাঝারি শিল্প কারখানা ও ২টি হাটবাজার রয়েছে।

২০২০-২০২১ অর্থ বছরে পৌরসভার রাজস্ব আয় হয় ২ কোটি ৭০ লাখ ৯৮ হাজার ৯৮৭ টাকা।

ভৌগলিকভাবে তিনটি উপজেলার মাঝে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের উপকুল ও নরসুন্দা নদীর মাঝে অবস্থিত হওয়ায় এক সময় এখানে সুপ্রসিদ্ধ ব্যবসায় কেন্দ্র গড়ে ওঠে। যেজন্য সপ্তাহে  রবি ও বৃহস্পতিবার এ দু’দিন হাটবার ছাড়াও প্রতিদিন ময়মনসিংহের গফরগাঁও, নান্দাইল ও জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলা অনেক লোকের সমাগম ঘটে।

এছাড়া পৌর এলাকার ভিতর দিয়েই ঢাকাসহ অন্যান্য জেলায় যোগাযোগের জন্য পৌর এলাকার রাস্তা দিয়েই যেতে হয়। পৌর এলাকায় ৪টি কলেজ, ৯টি প্রাইমারী স্কুল, ১টি দাখিল মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী এ সকল রাস্তা দিয়েই চলাচল করে; যেজন্য বিদ্যালয় চলাকালীন পৌর এলাকার রাস্তায় যানযট নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে ঊঠেছে।

এটি নিরসনের জন্য প্রয়োজন বাইপাস রাস্তা, সেই সঙ্গে পুরানো ব্রহ্মপুত্র নদকে পুনরুদ্ধার করে নদের দুই পাশে ওয়াকওয়ে নির্মাণ; পাশাপাশি শিশুদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা করা অত্যাবশ্যক বলেও মনে করেন তিনি।

মেয়র বলেন, ১৯ শহরের আওতায় ড্রেনেজ, রাস্তা সংস্কার ও সড়কবাতির ব্যবস্থা করতে পারলেও ৯টি ওয়ার্ডের সঙ্গে সড়কের সংযোগ করতে হলে ৩০ কোটি টাকার প্রকল্পের প্রয়োজন।

খাস জায়গাগুলো ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে অধিগ্রহণ করে পৌরসভায় হস্তান্তর করে এসব জায়গায় পৌর মার্কেট নির্মাণ করা হলে রাজস্ব আয় বাড়ানো সম্ভব হত। পৌরসভার নিজস্ব ফান্ড দ্বারা এ সকল কাজ বাস্তবায়ন করা একেবারেই অসম্ভব।

পৌর এলাকার হাসপাতাল চৌরাস্তা থেকে কুলেশ্বরী বাড়ি পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশে অনেকেই অবৈধ কাগজ করে ভবন নির্মাণ করেছে। তা উচ্ছেদ করতে না পারায় রাস্তা প্রশস্ত করতে পারছেন না।

মেয়র দু:খ প্রকাশ করে বলেন, মুখ্যমন্ত্রী নুরুল আমিন খানের সময় যে নালা ছিল; যা দিয়ে বাজারের পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা ছিল সেটি বন্ধ করে ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। যা উচ্ছেদ করা কষ্টকর হয়ে পড়েছে।

মেয়র বলেন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক নির্মিত ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টের আওতায় ১২ কিলোমিটার সুপেয় পানি সরবরাহের কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।

শহরের ময়লা-আবর্জনা সঠিক জায়গায় যেন ফেলা হয় এ ব্যাপারে তিনি পৌরবাসীকে উৎসাহিত করছেন; ভবিষ্যতে পৌর এলাকার ময়লা-আবর্জনা ফেলার জন্য একটি ডাম্পিং গ্রাউন্ড করা জরুরি প্রয়োজন।

এছাড়া অটোরিক্সা ও গাড়ি পার্কিং এর জন্য জায়গার প্রয়োজন।

মেয়র আব্দুল কাইয়ুম খোকন জানান, পৌর এলাকাকে মাদকমুক্ত রাখতে কাউন্সিলরদের নিয়ে তিনি কাজ করছেন। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতাসহ বিভিন্ন অনুদান যাতে সঠিকভাবে বন্টন হয়; সে বিষয়ে তিনি সজাগ দৃষ্টি রাখছেন।

দিনের বেলায় যাতে ট্রাক হোসেনপুর বাজারে ঢুকতে না পারে সে জন্য তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছেন।

এছাড়া ফুটপাত ও রাস্তায় যাতে বাজার না বসতে পারে; সে বিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ অব্যাহত প্রয়োজন।

তিনি হোসেনপুর পৌরসভাকে আগামী প্রজন্মের জন্য আধুনিক করে গড়ে তোলার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ রেখে বলেন,  প্রয়াত  সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের একটি স্বপ্ন ছিল; এটিকে প্রথম শ্রেণির পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলার। সেই অসমাপ্ত কাজটি সমাপ্ত করে তিনি হোসেনপুর পৌরসভাকে একটি আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তুলে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে চান।

এজন্য সবার সহযোগিতা ও দোয়া চান মেয়র খোকন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category